আমাদের সম্পর্কে

নেটজ পার্টনারশিপ ফর ডেভেলপমেন্ট এন্ড জাস্টিস

নেটজ পার্টনারশিপ ফর ডেভেলপমেন্ট এন্ড জাস্টিস, সংক্ষেপে নেটজ, একটি দাতব্য এবং স্বতন্ত্র প্রতিষ্ঠান যেটি জার্মানি ও বাংলাদেশে নিবন্ধনকৃত। ১৯৭৯ সাল থেকে নিয়মিত কর্মী, স্বেচ্ছাসেবক, ব্যক্তি, সাহায্যকারী দল এবং উদ্যোগী সংস্থার সঙ্গে নিযুক্ত হয়ে বাংলাদেশের দারিদ্র নিরসনের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোকে সঙ্গে নিয়ে নেটজ খাদ্য পুষ্টিতে আত্মনির্ভরশীল হতে, শিক্ষা গ্রহণে এবং মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় সহযোগিতা করে। আত্মনির্ভরশীল হওয়ার ক্ষমতাকে শক্তিশালীকরণ, পুষ্টি এবং স্বাস্থ্য অবস্থার উন্নতি সাধন, আয় বৃদ্ধি কর্মসূচি এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে সহযোগিতা দান, নারী অধিকার ও আইনি ব্যবস্থায় প্রবেশাধিকার দাবি ইত্যাদি সব ধরনের কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িত নেটস। এই সমস্ত পদক্ষেপের মাধ্যমে, টেকসই এবং দীর্ঘমেয়াদি গঠনগত পরিবর্তনের জন্য সক্রিয় করতে উদ্যোগ নেয় নেটজ।

বাংলাদেশে আমাদের প্রধান প্রধান কর্মক্ষেত্র সমূহ

টেকসই জীবিকায়ন - নেটজ ক্ষুধার বিরুদ্ধে সংগ্রাম করে

বাংলাদেশে ৩ কোটি ২ লক্ষ মানুষ অপুষ্টিতে ভুগছে। যারা নেটজ এর সাথে কাজ করে অথবা নেটজ এর কাজ করতে সহায়তা করে তারা একে ভবিতব্য বলে গ্রহন করে না। সহযোগী প্রতিষ্ঠান গুলোকে সঙ্গে নিয়ে, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের নারীরা এবং নেটসের বিশেষজ্ঞরা একটি আত্মনির্ভরশীল প্রক্রিয়ার উন্নয়ন করেছে যার মাধ্যমে দরিদ্র পরিবারগুলো এই স্থায়ী দারিদ্র থেকে নিজেদের মুক্ত করতে পারে।

  • এখন পর্যন্ত নেটজ ৪৪ হাজার অতি - দরিদ্র পরিবারকে জীবিকা অর্জনের কর্মসূচির মাধ্যমে সহযোগিতা করেছে, তাদেরকে স্থায়ী উপার্জনের ব্যবস্থা করে দিতে সক্ষম করেছে। এখন তারা নিজেদের খাদ্য, বস্ত্র, চিকিৎসা এবং নিজেদের সন্তানদের শিক্ষা গ্রহণের খরচ বহন করতে পারে।

জার্মান সেন্ট্রাল ইনস্টিউট ফর সোশ্যাল ইস্যুজ কর্তৃক প্রদত্ত DZI-Seal of Approval নিশ্চিত করে যে নেটজ প্রাপ্ত অনুদান দায়িত্বশীলতার সাথে ব্যবহার করে!

প্রাথমিক শিক্ষা- নেটজ হতদরিদ্র শিশুদের সহযোগিতা করে

বাংলাদেশে ৬ থেকে ১০বছরের মধ্যে ৩০ লক্ষ শিশু রয়েছে, যারা স্কুলে যেতে পারে না। অর্ধেকেরও বেশি ছেলেমেয়েরা তাদের প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করতে পারে না। নানাবিধ সমস্যার কারণে দরিদ্র পরিবারের শিশুরা তাদের পড়ালেখা চালিয়ে যেতে পারে না, এমনকি কখনও কখনও তারা স্কুলে ভর্তিও হতে পারে না। তাছাড়া, অনেক প্রচলিত সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো এমন অনুন্নত মানের যে শিশুদের সেখান থেকে শিক্ষা গ্রহণ অসম্ভব।

  • এখন পর্যন্ত নেটজ ৩৪ হাজার শিশুকে প্রাথমিক শিক্ষা পেতে সহয়তা করেছে। সেখানে তারা পড়তে, লিখতে এবং অংক করতে শেখে এবং তাদেরকে একটি উন্নত ভবিষ্যত গড়ার জন্য মৌলিক শিক্ষা দেওয়া হয়।

মানবাধিকার - নেটজ গ্রামাঞ্চলের দরিদ্র মানুষদের অধিকারের পক্ষে দাঁড়ায়

মৌলিক মানবাধিকার সমুন্নত রাখার বিষয়টি বাংলাদেশের সংবিধানের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। কিন্তু বাস্তবে, জনসংখ্যার একটি বড় অংশ আছে, যাদের অধিকার পদ্ধতিগতভাবে লঙ্ঘিত হয়। এই তালিকায় রয়েছে ভূমিহীন মানুষ, নারী ও সংখ্যালঘুরা। দেশের প্রচলিত আইন সঠিকভাবে প্রয়োগ ও কার্যকর হয় না এবং সেই সঙ্গে আইনি কাঠামোর বিভিন্ন দিকের উন্নতি সাধনের প্রয়োজন রয়েছে। বাংলাদেশের নেতৃস্থানীয় মানবাধিকার সংগঠনগুলো যারা মানুষকে তাদের অধিকার সম্পর্কে সচেতন করে এবং তা প্রয়োগ করার জন্য স্বচেষ্ট হয় নেটস তাদের প্রতি সহযোগিতার হাত প্রসারিত করে। একই সঙ্গে নেটস আইনগত কাঠামো উন্নয়নের জন্য অন্যান্যদের সাথে মিলে কাজ করে।

দুর্যোগ মোকাবেলার প্রস্তুতি ও উদ্যোগ- নেটস দূর্যোগ মোকাবেলায় সক্ষম হতে উৎসাহিত করে এবং দীর্ঘস্থায়ী সাহায্য দিয়ে থাকে

বাংলাদেশ হলো সেই দেশ গুলোর মধ্যে অন্যতম যেটি জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ।

  • নেটস যে সকল বন্যা-দূর্গত এলাকায় কর্মরত, সেখানে তারা বন্যা প্রতিরোধের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপসমূহ প্রচার করে থাকে। মানুষ এ ধরণের প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করে এবং একটি দুর্যোগ তহবিল গড়ে তোলে। সঠিক নির্মাণ প্রযুক্তি ব্যবহার করে স্কুল ভবন গুলোকে সুরক্ষিত রাখে।
  • ১৯৯১, ২০০৭ এবং ২০০৯ এর সাইক্লোনের পর এবং ১৯৮৮, ২০০৪ এবং ২০০৭ এর বন্যার পর নেটজ অত্যন্ত দরিদ্র পরিবার গুলোকে জরুরি ত্রাণ প্রদান করেছে।

আরো তথ্যের জন্য আমাদের বার্ষিক প্রতিবেদন দেখুন।

NETZ Partnership for Development and Justice
Moritz-Hensoldt-Straße 20
35576 Wetzlar
Germany
phone +49 (0) 6441 - 9 74 63–0
fax +49 (0) 6441 - 9 74 63–29
e-mail: info@bangladesch.org

যোগাযোগ

Peter Dietzel

Executive Director
dietzel@remove-this.bangladesch.org
Phone: 0 (049) 64 41 - 9 74 63-0

যোগাযোগ

NETZ Bangladesh, Country Office

House 3/1 (4th floor), Block D Lalmatia, Dhaka 1207
info@remove-this.netz-bangladesh.de
Phone: +88 02 9146458

We select partners and projects ourselves. We do not respond to any inquires regarding project proposal or fund request.